ভালোবাসা দিবসে প্রিয় মানুষটিকে কী ধরনের উপহার দেয়া যেতে পারে? (blogkori.tk)

ভালোবাসা দিবসে  প্রিয় মানুষটিকে

কী ধরনের  উপহার দেয়া যেতে পারে?




ভ্যালেন্টাইনস ডে বা ভালোবাসা দিবসে প্রিয়জনের জন্য উপহার নির্বাচনে অনেকেই দ্বিধায় পড়েন। বুঝে উঠতে পারেন না ঠিক কোন উপহারে প্রিয় মানুষটি অনেক খুশি হবেন। বাস্তবতা হলো, ছোট্ট উপহারও অনেক সময় দামি উপহারের চেয়ে বেশি আনন্দ দেয়।

আজকাল উপহার দেয়ার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয়তার কথাও মাথায় রাখতে হয়। এমন কিছু উপহার দেয়া ঠিক নয় যা কখনোই কাজে আসে না। বরং এমন কিছু দেয়া উচিৎ যা কাজে লাগে। তাই ভালোবাসা দিবসে প্রিয়জনকে দেয়ার জন্য উপহার ঠিক করুন চিন্তা-ভাবনা করে। তার পছন্দ-অপছন্দের কথা মাথায় রেখে।

সাধারণ কিছু উপহার :


প্রেমিকের জন্য -

প্রেমিক অর্থাৎ ছেলেদের উপহারের মধ্যে খুব জনপ্রিয় একটি আইটেম হল সুগন্ধি। যদি জানা থাকে কোন ব্রান্ডের কোন সুগন্ধি আপনার ভালোবাসার মানুষটির পছন্দ তবে চিন্তা কমে যায় অনেকটাই। কিন্তু নতুন সুগন্ধি উপহার দেয়ার ক্ষেত্রে একটু সতর্ক হওয়া দরকার। কারণ সেটি তার ভালো নাও লাগতে পারে।

আরেকটি ভালো গিফট হল শেভিং কিট। যদিও এটি খুবই ব্যক্তিগগত। তবে উপহারটি প্রয়োজনীয়ও। তাই ভালোবাসা দিবসে সুন্দর একটি শেভিং কিট পছন্দের মানুষটিকে দিতে পারেন নিশ্চিন্তে।

ভালোবাসা দিবসের উপহার হিসেবে ক্রিকেট বা ফুটবল ম্যাচের টিকিটের কথাও কিন্তু ভাবা যায়। উপহারটি হতে পারে একবারে আলাদা। যদি জানা থাকে ভালোবাসার মানুষ কোন খেলাটি বেশি পছন্দ করে; তবে তাকে সেই টুর্নামেন্টের টিকিট দিতে পারেন। উপহারটি হয়তো তাকে চমকে দেবে। আর যদি একসাথে গ্যালারিতে বসে খেলা দেখার ইচ্ছ থাকে; তাহলে নিজের জন্যও একটি টিকিট কিনে রাখতে পারেন ব্যাগে। এভাবে স্মরণীয় করে রাখা যেতে পারে ভ্যালেন্টাইনস ডে।

এছাড়া ভালোবাসা দিবেসে ছেলে বন্ধুদের উপহার দেয়ার জন্য ভাবতে পারেন ওয়ালেট, ঘড়ি, শো-পিস, অ্যাশট্রে, টি-শার্ট, কার্ড, টাই পিন, মগ, ফটোফ্রেমের কথা।

প্রেমিকার জন্য -

প্রেমিকা অর্থাৎ মেয়েদের জন্য এক গুচ্ছ লাল গোলাপ হতে পারে ভালেন্টাইনস ডের সবচেয়ে বড় উপহার। ব্যতিক্রম হিসেবে অর্কিড, ডালিয়া, দোলনচাঁপাও দিতে পারেন নিশ্চিন্তে। আর যদি জানা থাকে আপনার ভালোবাসার মানুষ কোন ফুল পছন্দ করে, তাহলে তো ভাবনা-চিন্তার কিছু নেই।

ফুলের পর ভালো উপহার হলো চকোলেট। নানা ধরনের চকোলেট থেকে পছন্দের চকোলেটটি বেছে নিন আপনার ভালোবাসার মানুষের জন্য। সুন্দর মোড়কে সাজিয়ে ভ্যালেন্টাইনস ডেতে সেটি তুলে দিন তার হাতে।

ভালোবাসা দিবসে বই হতে পারে অনেক ভালো উপহার। ভালোবাসার মানুষ যদি গল্প, উপন্যাস, প্রবন্ধ বা ভ্রমণ কাহিনী পড়তে পছন্দ করেন তবে তাকে কিনে দিতে পারেন পছন্দের লেখকের বই।অথবা দিতে পারেন কোন ড্রেস, মেকআপ কিট, পছন্দের ব্যান্ডের লিপস্টিক, হাতঘড়ি, পার্স, সানগ্লাস, হেয়ার স্ট্রেইটনার, আংটি, লকেট বা কানের দুল। তবে উপহার যাই হোক, এর উপস্থাপন হতে হয় আকর্ষণীয়। উপহার বক্সের গায়ে কবিতার পঙতিমালাও লিখে দিতে পারেন।

অসাধারণ কিছু উপহার :

এ তো গেল সাধারণ কিছু গিফট আইডিয়ার কথা। কিন্তু ভেবে দেখুন তো ভালোবাসার এই দিনটিতে প্রিয় মানুষটিকে এই জাতীয় রেডিমেট গিফটের পরিবর্তে কিছুটা আকর্ষণীয়, সৃজনশীল আর আবেগপূর্ণ গিফট দেয়া যায় তাহলে কেমন হয়? নিশ্চয়ই গভীর ভালোবাসায় রঙিন হয়ে উঠবে অঅপনার প্রিয় মানুষটির মুখ। আসুন জেনে নিই এমন কিছু ভ্যালেন্টাইন উপহার সম্পর্কে।

লাল গোলাপ -

ভালোবাসা প্রকাশের জন্য গোলাপ ফুল এখনও সেরা। যুগ যুগ ধরেই ভালোবাসা প্রকাশ করার অন্যতম একটি মাধ্যম হলো লাল গোলাপ। লাল গোলাপ ছাড়া যেনো সব উপহারই মলিন রয়ে যায়। ভালোবাসা দিবসে প্রিয় মানুষটিকে একটি লাল গোলাপ দিয়ে দিনটিকে একটু রঙিন করলে মন্দ কী!

হলুদ খামে চিঠি -

চিঠির প্রচলন নেই বললেই চলে। কিন্তু ভালোবাসা দিবসে প্রেমিক বা প্রেমিকাকে আঙুলের মিহিন সেলাইয়ে লিখতে পারেন ছোট্ট প্রেমপত্র। কালো কালো অক্ষরে বুনে দিতে পারেন ভালোবাসা অমীয় সঙ্গীত। খুব বড় চিঠি লিখতে না চাইলে লিখতে পারেন ছোট্ট প্রেমের চিরকুট।

বইমেলায় গিয়ে-

চলছে প্রাণের বইমেলা। ভালোবাসা দিবসে প্রিয়জনের হাত ধরে ছুট দিতে পারেন বইমেলা। কিনে দিতে পারেন প্রেমের কবিতার বই! বইয়ের প্রথম পাতায় ভালোবাসা জানিয়ে লিখে দিতে পারেন নিজের স্বচরিত দুয়েকটা পংতিমালা।

বুক পকেটে চকোলেট - 

ভালোবাসা দিবসে প্রেমিকার জন্য বুকপকেটে করে নিয়ে যেতে পারেন তার পছন্দের চকোলেট। ভালোবাসার মানুষটির পছন্দ অনুযায়ী একটি সুন্দর চকলেট বক্স উপহার দিয়ে ভালোবাসার সম্পর্কটিকে আরো মিষ্টি করে তুলতে পারেন এই ভ্যালেন্টাইন্স ডে তে।

নিজের হাতে তৈরী উপহার-

একটু সময় নিয়ে নিজের হাতেই বানিয়ে নিতে পারেন কার্ড, ফটোফ্রেম কিংবা অন্য কোনো সুন্দর উপহার। নিজের সৃজনশীলতা এবং রুচির সমন্বয়ে তৈরী আপনার এই উপহারটি আপনার ভালোবাসার মানুষটি পছন্দ করবেই।


(www.blogkori.tk)

Blogkori

Phasellus facilisis convallis metus, ut imperdiet augue auctor nec. Duis at velit id augue lobortis porta. Sed varius, enim accumsan aliquam tincidunt, tortor urna vulputate quam, eget finibus urna est in augue.

Post a Comment