"বই মেলায় শিক্ষাসফর করুন, শিক্ষক-শিক্ষার্থী বইপ্রেমী হোন" (blogkori.tk)

"বই মেলায় শিক্ষাসফর করুন
শিক্ষক-শিক্ষার্থী বইপ্রেমী হোন"


অত্যন্ত সানন্দ চিত্তে, 
দেশেরসকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, শিক্ষক এবং অভিভাবকদের প্রতি জানাচ্ছি যে, গত ০১-০২-২০১৭ খ্রি: হতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বাংলা অ্যাকাডেমি চত্বরে "একুশে বই মেলা" শুরু হয়েছে ! এ প্রাণের মেলায় আপনাকে/ আপনাদের স্বাগত জানাই! 

বাংলাদেশে এ মওসুম শিক্ষাসফরের মওসুম!
এ সময়ে দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হতে (দেশের প্রাকৃতিক ও প্রত্নতাত্ত্বিক সৌন্দর্যবিশিষ্ট স্থানে ) শিক্ষাসফরে যায় । আমি এ ক্ষুদ্র জীবনে দেখেছি এ জাতীয় বেশিরভাগ শিক্ষাসফর'ই প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে "পিকনিকে" পর্যবসিত হয়। আমি যে পিকনিকের বিপক্ষে তা নয়। কিন্ত "শিক্ষাসফরের ছদ্মবেশে পিকনিক" এর বিপক্ষে ! কেউ কেউ হয়তো শিক্ষাসফর এবং পিকনিক একত্রে করছেন, সেটি ভিন্ন, তাতে আমার কোনো'ই মাথাব্যথা নেই। 
মূলত আমি বলতে চাচ্ছি, সব মৌসুমে এ ধরণের স্পটে শিক্ষাসফরে না যেয়ে দু' এক বছর পরপর হলেও যদি বই মেলায় শিক্ষাসফর করা হয়, তা'হলে শিক্ষার্থী শিক্ষক এমনকি অভিভাবকদেরও বইয়ের প্রতি প্রীতি জন্মাবে এবং বই কেনার প্রতি আগ্রহ বাড়বে !

পাঠ্যবইয়ে জ্ঞান সীমিত, জ্ঞনের অসীম মহানসুন্দর, অসীম মহাসমুদ্রজগৎ পড়ে আছে পাঠ্যবইয়ের বাইরে! পাঠ্যবই মানুষকে জ্ঞান দেয়, আর পাঠ্যবইয়ের বাইরের বই মানুষকে দেয় জ্ঞান এবং মাধুর্য দুটোই !

বই মেলায় শিক্ষাসফরে এলে, হাজার বইয়ের ভেতর থেকে শিক্ষার্থী তার পছন্দের এমন একটি বই পছন্দসই কিনতে পারবে, যা হয়তো বই মেলায় না এলে সারাজীবনেও সম্ভব হতোনা !

বিশেষকরে, ঢাকার দূরবর্তী এলাকা এবং ঢকার বাইরে সারা বাংলাদেশ, যেখান থেকে একজন শিক্ষার্থী একা বা পারিবারিকভাবে কখনও বই মেলায় আসা সম্ভব হয়না, সেখানে শিক্ষার্থীর হাতে জ্ঞানের প্রদীপ তুলে দেয়ার এর চেয়ে বড়ো এবং সহজ সুন্দর সুযোগ আর আছে বলে আমার মনে হয়না ।

তা'ই দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষক, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক এবং সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি আমার বিনীত আবেদন, শিক্ষাসফর করুন জ্ঞানাধারে আর পিকনিক করুন সমুদ্রপারে !
সবার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধাসহ
-ডা: মো: রহমত উল্যা খান
---------------------------------------

সহযোগিতা চাই:
আমি কখনও'ই আমার কোনো লেখায় "লাইক & কমেন্ট" প্রত্যাশা করিনা, এখনও করছিনা! তবে Facebook ব্যবহারকারী সকলের কাছে শেয়ার প্রত্যাশা করি ! এ লেখাটি প্রচার না হলে আমার কোনো ক্ষতি নেই, দশকোটি শেয়ার হলেও আমার কোনো'ই লাভ নেই, লাভের প্রত্যাশাও নেই!
আমি শুধু চাই, একজন শিক্ষার্থী, একজন শিক্ষক, একজন অভিভাবক একটি বই কিনুক তার নিজের জন্য অথবা প্রিয়জনকে দেয়ার জন্য !
আমার স্বার্থে নয়, জাতির স্বার্থে আমি এ লেখাটির সর্বোচ্চ এবং সর্বোত্তম প্রচার প্রত্যাশী !
★এ বিষয়ে বাংলা একাডেমি এবং বইমেলা কর্তৃপক্ষের সর্বোচ্চ এবং  সর্বোত্তম সহযোগিতা প্রত্যাশা করি★
®কষ্ট করে যাঁরা এ লেখাটি পড়েছেন তাঁদের প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা জানাই !
-ডা: মো: রহমত উল্যা খান

প্রচারে- ডা: মো: রহমত উল্যা খান এর পক্ষে Blogkori.tk 

Blogkori

Phasellus facilisis convallis metus, ut imperdiet augue auctor nec. Duis at velit id augue lobortis porta. Sed varius, enim accumsan aliquam tincidunt, tortor urna vulputate quam, eget finibus urna est in augue.

Post a Comment