কাকে কি উপহার দিবেন? (blogkori.tk)

কাকে কি উপহার দিবেন?


উপহার পেতে আমরা কে না ভালবাসি ? আর তা যদি পাওয়া যায় প্রিয়জনের কাছ থেকে, তাহলে তো কথাই নেই ! আমাদের সকলেরই উপহার দিতে এবং পেতে ভালো লাগে। সামাজিকতা রক্ষায়ই হোক আর ভালবেসেই হোক, ছোট্ট একটি উপহারই কিন্তু বদলে দিতে পারে আপনার সম্পর্কের মাত্রাটিকে । সব উপহার সব মানুষকে দিলে তা শোভা পায় না। মানুষ ভেদে আপনকে নির্বাচন করে নিতে হবে যে কার জন্য কোন উপহারটা নেয়া যায়। এবং সেইটা তার পছন্দ হবে কিনা। আপনি যাকে উপহার দিবেন সে যদি হয় আপনার পরিবারে কেউ তাহলে সেই ক্ষেত্রে আপনাকে উপহার নির্বাচন করতে হবে একরকম, বন্ধু হলে আরেকরকম এবং ভালোবাসার মানুষ হলে আরেকটু ভিন্ন। আর এক্ষেত্রে আমরা উপহার নির্বাচনে ভুল করে ফেলি অনেকেই আবার অনেকেই দ্বিধার মধ্যে পরে থাকি কি উপহার দেওয়া যায় তা নিয়ে। তারপর উপহারটি যাকে দিবেন সেও পছন্দ করবে কিনা তা চিন্তায় ফেলে দেয়।

তবে শিশু, প্রেমিক-প্রেমিকা, বন্ধু-বান্ধব, স্বামী-স্ত্রী ভেদে কাকে, কী উপহার দিতে হবে, এ নিয়ে আমরা প্রায়ই বেশ ফ্যাসাদে পড়ে যাই । এই লেখায় সেই ধরণের কিছু টিপস দেয়ার চেষ্টা করছি ।

*পরিবারের সদস্যদের জন্য যে উপহার প্রযোজ্য:

আপনার পরিবারের সদস্যরা কি জিনিস পছন্দ করে তা নিশ্চই আপনার জানা থাকার কথা। সেই কারো পছন্দের জিনিস দামীও হতে পারে আবার কম দামীও হতে পারে। কিন্ত সেইটা কোনো ব্যাপার না। আপনাকে প্রথমেই যা লক্ষ্য রাখতে হবে যে যাকে উপহারটা দিচ্ছেন তার জন্য আপনর দেয়া উপহারটা কার্যকরি কিনা। তাই তাঁর পছন্দের কথা মাথায় রাখুন। আর উপলক্ষ বিশেষ হলে সেটাও মাথায় রাখতে হবে। তবে উপহার বিশেষ দিন ছাড়াও যেকোনো কারণেই দিতে পারেন। তাহলে আসুন দেখে নেই পরিবারের সদস্যদের কোন উপলক্ষ্যে কি উপহার দিলে খুশি হবে-

* জন্মদিন বা বিবাহ বার্ষিকী হলে গোপনে কেক এনে তাঁকে সারপ্রাইজ দিতে পারেন।

* শোপিস যেমন ল্যাম্পশেড বা ডেকোরেটিভ মোমবাতি, ক্রোকারিজও উপহার হিসেবে দিতে পারেন পরিবারের বড় কোনো।

* আপনার ছোট বা বড় ভাই-বোনের ক্ষেত্রে তাঁদের পছন্দ অনুযায়ী দিতে পারেন তাদের প্রিয় কোনো লেখকের বই, তাদের পছন্দের কোনো গায়কের গানের সিডি, পোশাক, পারফিউম বা প্রয়োজনীয় কসমেটিকস।

* স্বামীর ক্ষেত্রে উপহার হিসেবে দিতে পারেন শার্ট বা যেকোন পোশাক অথবা পারফিউম বা ঘড়ি। আর যদি বই পড়তে পছন্দ করে তাহলে বইও দিতে পারে। সারপ্রাইজ দিতে চাইলে স্বামীকে নিয়ে হলিডেতে ট্রিপ প্ল্যান করতে পারেন।

* স্ত্রীর ক্ষেত্রে আপনি তাকে শাড়ি বা স্বর্ণে কোনো জিনিস দিলেই বেশি খুশি হবে। তাছাড়াও দিতে পারেন সংসারে আপনার স্ত্রীর জন্য প্রয়োজনীয় কোনো কুকাড়াইজ আইটেম। স্ত্রী বাগান করার শখ থাকলে সংগ্রহ করে দিতে পারেন দুর্লভ কোনো গাছ।

*বন্ধুদের উপহার হিসেবে যা দেয়া যায় :

* বন্ধুর জন্য নিজের হাতে বানানো কোনো জিনিস যেমন কার্ড বা ঘর সাজানোর কোনো কিছু উপহার হিসেবে দিতে পারেন।

* আপনার বন্ধু যদি চা বা কফি খেতে বেশি ভালোবেসে থাকে তাহলে সেক্ষেত্রে তাকে ভিন্ন একা উপহার হিসেবে দিতে পারেন বন্ধু তাঁর পছন্দের ব্র্যান্ডের কফির জার ও কফির মগ।

* প্রিয় লেখকের বই, প্রিয় গায়কের গানের সিডিও দিতে পারেন বন্ধুকে।

* তাছাড়াও বন্ধুর জন্য ভালো উপহার হিসেবে দিতে পারেন কলম, কলমদানি, চাবির রিং, ডায়েরি, ফটোফ্রেম, চকলেট, এমনকি টেডি বিয়ার।

*সহকর্মীদের উপহার হিসেবে যা দেয়া যায় :

* যেহেতু আপনার সহকর্মী শুধু মাত্র কর্মসূত্রে পরিচিত সুতরাং সে ক্ষেত্রে সহকর্মীকে খুব বেশি ব্যক্তিগত উপহার না দেয়াই ভালো। বিশেষ উপলক্ষে একগুচ্ছ ফুল হতে পারে খুব ভালো উপহার।

* সহকর্মীকে উপহার হিসেবে শোপিসও দিতে পারেন।

* বই পড়ার অভ্যাস থাকলে অথবা সিনেমা দেখার অভ্যাস থাকলে সেক্ষেত্র বই বা ক্লাসিক সিনেমার কালেকশনও দিতে পারেন উপহার হিসেবে।

* এছাড়াও চকলেটের সাথে একটা শুভেচ্ছা কার্ডও হতে পারে সুন্দর উপহার।

*প্রেমিকার জন্য প্রযোজ্য:

*প্রেমিকা অর্থাৎ মেয়েদের জন্য এক গুচ্ছ লাল গোলাপ হতে পারে ভালেন্টাইনস ডের সবচেয়ে বড় উপহার। ব্যতিক্রম হিসেবে অর্কিড, ডালিয়া, দোলনচাঁপাও দিতে পারেন নিশ্চিন্তে। আর যদি জানা থাকে আপনার ভালোবাসার মানুষ কোন ফুল পছন্দ করে, তাহলে তো ভাবনা-চিন্তার কিছু নেই।

*ফুলের পর ভালো উপহার হলো চকোলেট। নানা ধরনের চকোলেট থেকে পছন্দের চকোলেটটি বেছে নিন আপনার ভালোবাসার মানুষের জন্য। সুন্দর মোড়কে সাজিয়ে ভ্যালেন্টাইনস ডেতে সেটি তুলে দিন তার হাতে।

*ভালোবাসা দিবসে বই হতে পারে অনেক ভালো উপহার। ভালোবাসার মানুষ যদি গল্প, উপন্যাস, প্রবন্ধ বা ভ্রমণ কাহিনী পড়তে পছন্দ করেন তবে তাকে কিনে দিতে পারেন পছন্দের লেখকের বই।অথবা দিতে পারেন কোন ড্রেস, মেকআপ কিট, পছন্দের ব্যান্ডের লিপস্টিক, হাতঘড়ি, পার্স, সানগ্লাস, হেয়ার স্ট্রেইটনার, আংটি, লকেট বা কানের দুল। তবে উপহার যাই হোক, এর উপস্থাপন হতে হয় আকর্ষণীয়। উপহার বক্সের গায়ে কবিতার পঙতিমালাও লিখে দিতে পারেন।

*প্রেমিকের জন্য প্রযোজ্য:

*প্রেমিক অর্থাৎ ছেলেদের উপহারের মধ্যে খুব জনপ্রিয় একটি আইটেম হল সুগন্ধি। যদি জানা থাকে কোন ব্রান্ডের কোন সুগন্ধি আপনার ভালোবাসার মানুষটির পছন্দ তবে চিন্তা কমে যায় অনেকটাই। কিন্তু নতুন সুগন্ধি উপহার দেয়ার ক্ষেত্রে একটু সতর্ক হওয়া দরকার। কারণ সেটি তার ভালো নাও লাগতে পারে।

আরেকটি ভালো গিফট হল শেভিং কিট। যদিও এটি খুবই ব্যক্তিগগত। তবে উপহারটি প্রয়োজনীয়ও। তাই ভালোবাসা দিবসে সুন্দর একটি শেভিং কিট পছন্দের মানুষটিকে দিতে পারেন নিশ্চিন্তে।

ভালোবাসা দিবসের উপহার হিসেবে ক্রিকেট বা ফুটবল ম্যাচের টিকিটের কথাও কিন্তু ভাবা যায়। উপহারটি হতে পারে একবারে আলাদা। যদি জানা থাকে ভালোবাসার মানুষ কোন খেলাটি বেশি পছন্দ করে; তবে তাকে সেই টুর্নামেন্টের টিকিট দিতে পারেন। উপহারটি হয়তো তাকে চমকে দেবে। আর যদি একসাথে গ্যালারিতে বসে খেলা দেখার ইচ্ছ থাকে; তাহলে নিজের জন্যও একটি টিকিট কিনে রাখতে পারেন ব্যাগে। এভাবে স্মরণীয় করে রাখা যেতে পারে ভ্যালেন্টাইনস ডে।

এছাড়া ভালোবাসা দিবেসে ছেলে বন্ধুদের উপহার দেয়ার জন্য ভাবতে পারেন ওয়ালেট, ঘড়ি, শো-পিস, অ্যাশট্রে, টি-শার্ট, কার্ড, টাই পিন, মগ, ফটোফ্রেমের কথা।

#অসাধারন কিছু উপহার:

*বই

এখন চলছে বই মেলা। বলা হয়ে থাকে বই মানুষের সবচাইতে ভালো বন্ধু এবং কাউকে দেয়ার জন্য সবচাইতে ভালো উপহার। এইবারের ভালোবাসা দিবসে তে আপনার ভালোবাসার মানুষটিকে উপহার দিতে পারেন তার পছন্দের কোনো বই। বইয়ের প্রথম পাতায় ভালোবাসা প্রকাশ করে কয়েকটি কথাও লিখে দিতে পারেন তাকে।

*রোমান্সঃ

ক্যান্ডেল লাইট ডিনারের আয়োজন করতে পারেন । খ্যাতিমান কোন রেস্তোরাঁয় অথবা নিজের বাসায় নিজ হাতে রান্না করেও খাওয়াতে পারেন আপনার কাছের মানুষটিকে । এক্ষেত্রে একেবারে ভিন্ন কোন রেসিপি নিয়ে চেষ্টা করে দেখতে পারেন, অথবা তার পছন্দের খাবারটিও রেঁধে রাখতে পারেন । রাঁধার সময় তার সাহায্য নিয়েও রাঁধতে পারেন ।

*শখঃ

প্রিয়জনের শখের প্রতি গুরুত্ব দিয়ে তাকে তার শখ চর্চার জন্যও কিছু একটা উপহার দিতে পারেন । যেমন – বাগান করতে পছন্দ করলে তাকে এই সম্পর্কিত বই অথবা দুর্লভ গাছের চারা ইত্যাদি উপহার দিতে পারেন । বই পড়তে পছন্দ করলে প্রিয় লেখকের বই-ও দিতে পারেন । অনেকেই কবিতা পড়তে ও আবৃত্তি করতে ভালবাসেন । তাদের জন্য কবিতার বই, সিডি অথবা আবৃত্তি অনুষ্ঠানেও নিয়ে যেতে পারেন । এছাড়া অনেকেই ম্যাগাজিন-ও পড়তে বা সংগ্রহ করতে ভালবাসে, সেইদিকেও নজর দিতে পারেন ।পুরনো অ্যান্টিক সামগ্রীর প্রতিও অনেকেরই দুর্বলতা থাকে । উপহার হিসেবে সেটিও কিন্তু অমূল্য !

*নিজের হাতে তৈরী উপহারঃ

একটু সময় নিয়ে নিজের হাতেই বানিয়ে নিতে পারেন কার্ড, ফটোফ্রেম কিংবা অন্য কোনো সুন্দর উপহার। নিজের সৃজনশীলতা এবং রুচির সমন্বয়ে তৈরী আপনার এই উপহারটি আপনার ভালোবাসার মানুষটি পছন্দ করবেই।

*খেলাধুলাঃ

আপনার প্রিয় মানুষটি খেলাধুলার প্রতি আগ্রহী হয়ে থাকলে, তাকে তার প্রিয় দলের ম্যাচের টিকিট উপহার দিতে পারেন । স্থান যদি দেশের বাইরে হয়, তবে তার সাথে আগেই আলোচনা করে নিন । আর নির্দিষ্ট পছন্দের কোন খেলোয়াড় থাকলে তার সাথে দেখা করার ব্যবস্থাও করে দিতে পারেন দলটির জনসংযোগ বিভাগের সাথে কথা বলে ।

*গানঃ
কখনো কথায় কথায় এক ফাঁকে জেনে নিন প্রিয়জনের পছন্দের কণ্ঠশিল্পী অথবা ব্যান্ডের নাম । মাঝে মাঝে সিডি অথবা মিউজিক গিফট কার্ড উপহার দিয়ে চমকে দিন তাকে । অথবা বাজাতে জানলে তাকে গিটার, মাউথ অর্গান, বেহালা কিংবা অন্য যেকোনো বাদ্যযন্ত্রও উপহার দিতে পারেন ।

*প্রযুক্তি পন্য

ইদানিং ভালোবাসা দিবসে অনেকেই প্রযুক্ত পণ্য উপহার পেতে এভং উপহার দিতে পছন্দ করেন। সামর্থ্য থাকলে ভালো কোনো স্মার্ট ফোন অথবা ল্যাপটপ দিতে পারেন ভালোবাসার মানুষটিকে। একটু কম বাজেট থাকলে সুন্দর একটি হেড ফোন, মোবাইল কভার কিংবা সুন্দর একটি পেনড্রাইভ দিয়েও চমকে দিতে পারেন প্রিয় মানুষটিকে।

*মগ ও টি-শার্টে মধ্যে নিজেদের ছবি কিংবা নাম

এই ভালোবাসা দিবসে তে মগের মধ্যে নিজেদের সুন্দর একটা ছবি ছাপিয়ে প্রিয়জনকে উপহার দিতে পারেন। নিলক্ষেতে কিংবা কাটাবনের অনেক গুলো দোকানই মগে ছবি ছাপানোর কাজ করে থাকে। এছাড়াও ফেসবুকের কিছু পেজও কাজটি করছে। চাইলে টি শার্টেও ছাপিয়ে উপহার দিতে পারেন নিজেদের ছবি কিংবা নাম।


(www.blogkori.tk)

Blogkori

Phasellus facilisis convallis metus, ut imperdiet augue auctor nec. Duis at velit id augue lobortis porta. Sed varius, enim accumsan aliquam tincidunt, tortor urna vulputate quam, eget finibus urna est in augue.

Post a Comment