দারুচিনির ঔষুধী গুণ

দারুচিনি খেলে ভালো হবে


সারাদেশে এসএসসি পরীক্ষা চলছে। মাসখানেক পরে আসছে এইচএসসি। এছাড়া ছাত্রজীবনে পরীক্ষার প্যারা তো নিয়মিত ঘটনা। পরীক্ষায় ভালো করার জন্য দারুচিনি খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে। স্মৃতিশক্তি বাড়াতে দারুচিনি নাকি খুবই কার্যকর। সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় পাওয়া গেছে এ মসলা খেলে শেখার ক্ষমতা বেড়ে যায়।
সাধারণত মিষ্টান্নের ওপর ছিটিয়ে দেওয়া হয় বা চায়ের সাথে মেশানো হয় এই মসলা। এছাড়াও বিভিন্ন ঔষধি কাজে ও প্রসাধনে এটি ব্যবহৃত হয়ে আসছে। শত বছর ধরে রান্নায় স্বাদ বাড়িয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে দারুচিনি অতি প্রয়োজনীয় উপকরণ হিসেবে স্বীকৃত।
রান্নায় স্বাদ বা সুগন্ধ বাড়ানো ছাড়াও এর আর যে যে উপকারিতে রয়েছে সেগুলো হচ্ছে :
১. দারুচিনিতে বেশি পরিমাণে রয়েছে পলিফেনল এন্টিঅক্সিডেন্টস। এ জন্য এটাকে সুপারফুড ও বলা হয়।
২. ইনসুলিন মাত্রা নিয়ন্ত্রণ ও রক্তে চিনি নিয়ন্ত্রণ করে।
৩. এ মসলা শরীরের বাজে কোলেস্টরল এবং ট্রিগলিসিরাইডস্ কমায়। উঁচু ফ্যাটের খাবারের প্রভাব নিয়ন্ত্রণ করতে পারে।
৪. এ মসলা প্রদাহ রোদে খুবই কার্যকরী। দারুচিনিতে সিনামালদেহাইড নামে একটি উপাদান আছে। এটা শরীরে সংক্রমণ ও ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধে কাজ করে।
সাধারণত মাটির দারুচিনি ছয়মাস পর্যন্ত টেকে। বায়ুরোধী পাত্রে সংরক্ষণ করলে সেটা এক বছর সংরক্ষণ করা যায়। ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য খুবই প্রয়োজনীয় সঙ্গী হতে পারে দারুচিনি। কারণ এটি আপনার স্মৃতিশক্তি বাড়িয়ে দেবে আর পরীক্ষায় ভালো ফলাফল! 

সূত্র : টাইমস্ অব ইন্ডিয়া
এসবিআই/একে

Blogkori

Phasellus facilisis convallis metus, ut imperdiet augue auctor nec. Duis at velit id augue lobortis porta. Sed varius, enim accumsan aliquam tincidunt, tortor urna vulputate quam, eget finibus urna est in augue.

Post a Comment