বইমেলার অজস্র বইয়ের মধ্য থেকে কিছু বইয়ের খোঁজখবর

যেসব বই আসছে----বইমেলার অজস্র বইয়ের মধ্য থেকে কিছু বইয়ের খোঁজখবর


বাঙালির প্রাণের মেলা বইমেলা। প্রতিবছর কয়েক হাজার নতুন বই এবং লক্ষাধিক পুরোনো বইয়ের পাতা ওলটানোর শব্দে মর্মরিত হয়ে ওঠে অমর একুশের বইমেলা। নতুন প্রচ্ছদের রং গোটা পৃথিবীকেই যেন রঙিন করে দেয়। লেখক, পাঠক ও প্রকাশকের মিলনস্থলে বেজে উঠতে থাকে সহস্র আনন্দের ভেঁপু। ঐতিহ্যের পরম্পরায় এবারও শুরু হলো বইমেলা। এবারও হাজার নতুন বই এবং লাখো পুরোনো বইয়ের ঘ্রাণ আর শব্দে মেতে উঠেছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। চারদিকে এখন নতুন বইয়ের বিজ্ঞাপন। প্রকাশকেরা ব্যস্ত। লেখক হয়তো মাত্রই পাণ্ডুলিপি বুঝিয়ে দিয়ে হাঁপ ছেড়েছেন। তবে তাঁদের মন কি পড়ে নেই প্রকাশিতব্য বইয়ের মধ্যে? প্রচ্ছদের রং ঠিকঠাকমতো আসবে তো! একটা বানান ভুল থেকে গেল না তো! উৎসর্গ কি ঠিকজনকে করলাম? প্রকাশক যত্ন নিয়ে বইটা করবে তো? এসব আনন্দময় আশঙ্কা শেষে তবেই লেখক হাতে পাবেন কাঙ্ক্ষিত বই। তারপর আবার বইমেলায় গিয়ে প্রতিদিন দূর থেকে লুকিয়ে লুকিয়ে দেখবেন, পাঠক বইটা উল্টেপাল্টে দেখছে তো? ওই তো, একজন কিনল মনে হয়!
ওদিকে পাঠকও সারা বছর টাকা জমিয়ে রেখেছেন, হয়তো টিউশনির টাকা থেকে, হয়তো চাকরির বেতন থেকে সামান্য একটা অংশ সরিয়ে, সারা মাস ঘুরে ঘুরে প্রিয় লেখকদের বই সংগ্রহ করবেন বলে। সেসব অপেক্ষা বছরের অন্য মাসগুলোকে করে তোলে মধুর। মেলার আগে থেকেই পত্রিকা কিংবা অন্য সব মাধ্যমে চোখ বোলাতে শুরু করেন, কী কী বই আসছে। মেলা শুরু হলে স্টলে স্টলে গিয়ে বইয়ের তালিকা সংগ্রহ করবেন, সেখান থেকে বাছাই করে শুরু করবেন প্রিয় লেখকের বই কেনা। বাবা-মা তাঁর প্রিয় সন্তানটির হাতে প্রিয় লেখকের বই তুলে দিয়ে হেসে উঠবেন আপন মনে, একটি অটোগ্রাফ আনতে পারলে যুদ্ধজয়ের আনন্দ পাবেন।

কী কী বই আসছে এবারের মেলায়?
বিগত বছরগুলোতে পাঠকের একটা বড় আগ্রহ ছিল প্রথমা প্রকাশন নিয়ে। মূলত সারা বছরই বই প্রকাশ করে প্রথমা। বরাবরের মতোই এবারও ভিন্ন স্বাদের সব বই আনছে এ পুস্তক-প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানটি। প্রবন্ধের বই আসছে সৈয়দ আবুল মকসুদের স্যার ফিলিপ হার্টগ: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম উপাচার্য। মহিউদ্দিন আহমেদের আওয়ামী লীগ: উত্থানপর্ব ১৯৪৮-১৯৭০, সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর অবিরাম পথ খোঁজা, শিশির ভট্টাচার্যের বাংলা ব্যাকরণের রূপরেখা। মতিউর রহমানের সম্পাদনায় আসছে বাংলাদেশের নায়কেরা। এবার মতিউর রহমানের আরেকটি বই আসছে প্রথমা থেকে, সাক্ষাৎকারের বই—ইতিহাসের সত্য সন্ধানে: বিশিষ্টজনদের মুখোমুখি। লেখক-সাংবাদিক মতিউর রহমান পেশা ও আদর্শগত কারণে বিভিন্ন সময়ে সান্নিধ্য লাভ করেছেন বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী, সাবেক প্রধানমন্ত্রী, ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতি, সাবেক প্রধানমন্ত্রী, অর্থনীতিবিদ, সংগীতশিল্পী, ক্রিকেটার, মানবাধিকারকর্মীসহ বিভিন্নজনের। তাঁদের সঙ্গে বিচক্ষণ ও খোলামেলা প্রাণবন্ত কথোপকথন নিয়ে এই বই উন্মোচিত করবে ইতিহাসের নানা অধ্যায়। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে প্রথমা আনছে রেহমান সোবহানের বাংলাদেশের অভ্যুদয়: একজন প্রত্যক্ষদর্শীর ভাষ্য। উপন্যাস আসছে হরিশংকর জলদাসের রঙ্গশালা, আনিসুল হকের প্রিয় এই পৃথিবী ছেড়ে। জীবনানন্দ দাশকে নিয়ে লেখা এ বছর কথাসাহিত্যে বাংলা একাডেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত কথাসাহিত্যিক শাহাদুজ্জামানের উপন্যাস একজন কমলালেবু এই বইমেলায় আলাদা আকর্ষণ হবে, বলাই বাহুল্য। এ ছাড়া উপন্যাস আসছে মোহিত কামাল, আসিফ নজরুল, আন্দালিব রাশদী, বিশ্বজিৎ চৌধুরী ও রায়হান রাইনের। বর্তমান সমাজের ভয়াবহ এবং নগ্ন রূপটি উঠে এসেছে রায়হান রাইনের নিখোঁজ মানুষেরা উপন্যাসে। প্রথমা কবিতার বই আনছে দুটি: সৈয়দ শামসুল হকের ৬০টি কবিতা নিয়ে আসছে কাব্যগ্রন্থ শব্দই চিকিৎসিত করে আর রাসেল রায়হানের ­ বিব্রত ময়ূর। কবিতার পাঠকদের কাছে সৈয়দ শামসুল হকের বইটি নিশ্চয়ই এই বইমেলার প্রধান আকর্ষণ হতে পারে। এ ছাড়া ক্রিকেট নিয়ে প্রথমার একমাত্র বই উৎপল শুভ্রর কল্পলোকে ক্রিকেটের গল্প। ক্রিকেটের সূচনার দিকের মাস্টার ক্রিকেটারদের নিয়ে ফিকশনের ঢংয়ে লেখা এই বই নির্ভুল লেখকের অন্যান্য বইয়ের মতোই সুখপাঠ্য। এ ছাড়া গল্প, বিজ্ঞান কল্পকাহিনি, জীবনীগ্রন্থ, অনুবাদগ্রন্থ, স্বাস্থ্যসংক্রান্ত বই, ভৌতিক উপন্যাস, শিশু-কিশোরদের গল্পসহ বিভিন্ন ধরনের বইয়ে সেজে থাকবে প্রথমা।

বেঙ্গল পাবলিকেশন্স থেকে আবুল হাসনাতের সম্পাদনায় আসছে কাইয়ুম চৌধুরী স্মারকগ্রন্থ। আসছে নাসরিন জাহানের দুটি উপন্যাস। আহমাদ মোস্তফা কামালের উপন্যাস সবচেয়ে সুন্দর করুণ। হায়াৎ মামুদের বই ফাদার সিয়ের্গি। মঈনুস সুলতানের বই পুষ্পিত ফরাশ ও বেগুনি জ্যোৎস্না। আবুল মোমেনের ভূমিকাসহ নির্বাচিত রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গল্পের সংকলন বিংশতি। আসছে জ্যোতিপ্রকাশ দত্তের উপন্যাসিকা সুখবাস

আগামী প্রকাশনীর নতুন বইয়ের তালিকায় প্রথমেই থাকবে শেখ হাসিনার নির্বাচিত প্রবন্ধ। বাংলাদেশের সমকালীন রাজনীতির ওপর বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর লেখা ১৩টি প্রবন্ধ নিয়ে প্রকাশিত হচ্ছে এই সংকলনগ্রন্থ। ইমেরিটাস অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম এই বইয়ের ভূমিকায় লিখেছেন, ‘লেখক হিসেবে শেখ হাসিনা মূলত প্রাবন্ধিক, বিশেষভাবে বলতে গেলে রাজনৈতিক ভাষ্যকার। তাঁর নির্বাচিত প্রবন্ধ সংকলন গ্রন্থটি বর্তমান বাংলাদেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের চিন্তাচেতনা, মন-মানসিকতা ও দৃষ্টিভঙ্গির পরিচয় বহন করে।’

মোগল সুবার রাজধানী, পূর্ব বাংলা ও আসাম প্রদেশের রাজধানী, পূর্ব পাকিস্তানের রাজধানী এবং স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ রাষ্ট্রের রাজধানীরূপে ঢাকার চার শ বছরের বিচিত্র রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক ঘাত-প্রতিঘাত এবং উত্থান-পতনের ইতিহাস সহজ-সরল ভাষায় কালানুক্রমিক বর্ণনা করা হয়েছে রফিকুল ইসলামের ঢাকার কথা গ্রন্থে

অক্টোবর ১৯৮৪ থেকে তাঁর মৃত্যুর তিন দিন আগ পর্যন্ত (১৯৯৯) সমাজ, রাষ্ট্র, ব্যক্তি, রাজনীতি এবং সমাজে বিশিষ্ট ব্যক্তি হিসেবে পরিচিতদের নিয়ে লিপিবদ্ধ আহমদ শরীফের রোজনামচা ভাব-বুদ্বুদ নিঃসন্দেহে পাঠকের বিশেষ আগ্রহের বিষয় হবে। আসছে ফরিদ কবিরের আত্মজীবনীমূলক বই, আমার গল্প। উপন্যাস থাকছে হাসনাত আবদুল হাইয়ের সময় অসময়। মৌলি আজাদের দীর্ঘ গল্প রক্তজবাদের কেউ ভালোবাসেনি। ধ্রুপদি সাহিত্য বিভাগে থাকছে জীবনানন্দ দাশের রূপসী বাংলা
অন্যপ্রকাশ থেকে হুলমায়ূন আহমেদ রচনাবলী নবম ও দশম খণ্ড থাকছে মেলায়। চিকিত্সাধীন অবস্থায় শেক্সপিয়ারের হ্যামলেট অনুবাদ করেছিলেন সৈয়দ শামসুল হক, আসছে সেই বইটিও।

সময় প্রকাশনা থেকে আসছে ফরিদ আহমেদের প্রকাশকনামা ও হুতমায়ূন আহমেদ; কথাসাহিত্যের জাদুকর হুবমায়ূন আহমেদকে নিয়ে লেখা সময়-এর স্বত্বাধিকারী ফরিদ আহমেদের এ বইয়ে পাওয়া যাবে হুকমায়ূন সম্পর্কে অনেক অজানা তথ্য। এ ছাড়া থাকছে আবদুল মান্নান সৈয়দের নির্বাচিত কবিতা, মুনতাসীর মামুনের উনিশ শতকের পূর্ববঙ্গের থিয়েটার ও নাটক। থাকছে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের আমাদের বিপন্ন পরিবেশ ও আমাদের জাতীয় সংসদ নির্বাচন, সংস্কৃতিমন্ত্রী এবং বিশিষ্ট শিল্পব্যক্তিত্ব আসাদুজ্জামান নূরের বেলা অবেলা সারাবেলা: তৃতীয় খণ্ড, আনিসুল হকের প্রিয়তমা, তোমাকে।

মাওলা ব্রাদার্সের উল্লেখযোগ্য বইয়ের ভেতর থাকছে সৈয়দ শামসুল হকের উপন্যাস সীমানা ছাড়িয়ে, গল্পগ্রন্থ রক্তগোলাপ এবং সেলিনা হোসেনের বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ।

বরাবরের মতো এবারও বৈচিত্র্যময় এবং ভিন্ন স্বাদের প্রায় ৭০টি বইয়ের ভান্ডার নিয়ে আসছে ঐতিহ্য প্রকাশনী। এর মধ্যে বঙ্গবন্ধুর নির্বাচিত ভাষণের সংকলন ওঙ্কারসমগ্র শুরুতেই পাঠকের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হবে। স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস, জাতীয় শোক দিবস, সাতই মার্চের অনুষ্ঠানসহ নানা উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর বজ্রকণ্ঠের ভাষণ শুনে শুনেই তাঁকে চিনেছে নতুন প্রজন্ম। বঙ্গবন্ধুর শতাধিক ভাষণ থেকে বাছাই করে গুরুত্বপূর্ণ ৬৭টি ভাষণ শ্রুতিলিপিরূপে প্রকাশ করেছে ঐতিহ্য। এটি নিঃসন্দেহে এবারের বইমেলার গুরুত্বপূর্ণ বই। বঙ্গবন্ধুর মুখের উচ্চারণ অনুযায়ী বইটি শ্রুতিলেখন ও সম্পাদনা করেছেন নির্ঝর নৈঃশব্দ্য। ঢাকাই খাবার ও খাদ্যসংস্কৃতি নিয়ে সাদ উর রহমানের গবেষণাগ্রন্থটিতে রয়েছে লুপ্তপ্রায় ঢাকাই খাবারের তালিকা ও রন্ধনপ্রণালি। এ ছাড়া শারমিন আহমদ রচিত মুক্তির কাণ্ডারী তাজউদ্দীন প্রকাশ করেছে এই প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান। এ ছাড়া গত মে মাসে ঐতিহ্য থেকে প্রকাশিত সৈয়দ আকরাম হোসেন সম্পাদিত ৩০ খণ্ড রবীন্দ্র-রচনাবলি বইমেলায় পাওয়া যাবে বিশেষ ছাড়ে।

তাম্রলিপি প্রকাশনীর বিশেষ আকর্ষণ হুিমায়ূন আহমেদের মা আয়শা ফয়েজের স্মৃতিচারণামূলক বই শেষ চিঠি। আসছে মুহম্মদ জাফর ইকবালের সায়েন্স ফিকশন রিটিন। এবার গুলতেকিন খানেরও দুটি বই করছে তাম্রলিপি। গত বছরও তারা গুলতেকিনের বই করেছিল। এ ছাড়া মুক্তিযুদ্ধের ৬৪ জেলার কিশোর ইতিহাসের বই ৬৪ খণ্ডে প্রকাশ করছে এই প্রতিষ্ঠান।
অনন্যা থেকে প্রকাশিত হবে ইমদাদুল হক মিলনের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস নয় মাস, ফরিদুর রেজা সাগরের দুটি বই চেনা মানুষের মুখ ও প্রিয় বাবার মুখ এবং হাসান ফেরদৌসের নিউইয়র্কের খেরোখাতা।
৩০টির মতো নতুন বই নিয়ে মেলায় আসছে প্রকাশনা সংস্থা প্লাটফর্ম। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য এবার কবিতায় বাংলা একাডেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত কবি আবু হাসান শাহরিয়ারের একমাত্র কবিতার বই অসময়ে নদী ডাকে, রফিকুর রশীদের উপন্যাস ছায়ার পুতুল, শামীম হোসেনের কবিতার বই ডুমুরের আয়ু।

নতুন প্রকাশনী সংস্থা চৈতন্য তাদের কাজে মুনশিয়ানা দেখাচ্ছে বহুদিন। মেলাকে উপলক্ষ করে এবার তারা প্রায় ৮০টি বই আনছে, যার মধ্যে বেশির ভাগই প্রবন্ধের বই। চৈতন্যের বইয়ের সারিতে শুরুতেই এগিয়ে থাকবে কথাশিল্পী শাহাদুজ্জামানের চলচ্চিত্রবিষয়ক প্রবন্ধের বই কথা চলচ্চিত্রের। দেশি-বিদেশি চলচ্চিত্র ও চলচ্চিত্রকারদের ওপর বিচিত্র প্রবন্ধের সংকলন হলেও এতে প্রবন্ধের পাশাপাশি কিছু সাক্ষাৎকারও সংকলিত হয়েছে। আছে আন্দ্রেই তারকোভস্কির ডায়েরি ও তাঁর বইয়ের নির্বাচিত অংশের অনুবাদ। সংযোজিত হয়েছে পূর্ণাঙ্গ একটি চিত্রনাট্য। সৈয়দ নিজার আলমের গবেষণাগ্রন্থ ভারত শিল্পের উপনিবেশায়ন ও সুলতানের বিউপনিবেশায়ন ভাবনা বইটিও পাঠকের আগ্রহ জাগাবে। আসছে মাজুল হাসানের ভূমিকা ও ভাষান্তরে টানা গদ্যের গডফাদার: রাসেল এডসনের কবিতার অনুবাদ।
শ্রাবণ প্রকাশনী থেকে অর্ধশতাধিক নতুন বই প্রকাশিত হচ্ছে। উল্লেখযোগ্য বইয়ের মধ্যে প্রথমেই আছে নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিনের শৃঙ্খল ভেঙেছি আমি। দেশ-বিদেশের বিভিন্ন পত্রিকায় নানা সময়ে প্রকাশিত কলামগুলোর সংগ্রহেই মূলত বইটি সাজানো। এ ছাড়া থাকছে রেজা ঘটকের ফিদেল, দ্য গ্রেট কমরেড।
বই বই—অজস্র বই। প্রতিটি প্রকাশনীই ব্যস্ত তাদের বই নিয়ে। এই মুহূর্তে সামান্য নিশ্বাস ছাড়ার ফুরসত নেই তাদের। সামনের দিনগুলোতে আরও অজস্র বইয়ের সম্ভারে গমগম করবে বইমেলা, কান পেতে আছি।

Blogkori

Phasellus facilisis convallis metus, ut imperdiet augue auctor nec. Duis at velit id augue lobortis porta. Sed varius, enim accumsan aliquam tincidunt, tortor urna vulputate quam, eget finibus urna est in augue.

Post a Comment