এই গরমে ডায়েট

গরম পড়ছে, কী খাচ্ছেন?


পঞ্জিকা অনুসারে গ্রীষ্মকাল শুরু হয়নি। তবে গরম এখনই জেঁকে বসেছে। গ্রীষ্মকালকে অনেকে ডায়েটের উপযুক্ত সময় হিসেবে বেছে নেন। ব্যায়ামও করেন নিয়মিত এ সময়। এতে আলসে জড়তা থাকে না ততটা।

পুষ্টিবিদ আখতারুন্নাহার আলো বলেন, গরমে সাধারণত তেল এবং মসলাজাতীয় খাবার অর্থাৎ ক্যালরির পরিমাণ বেশি এমন খাবার বাদ দেওয়া উচিত। যেসব খাবারে পানির পরিমাণ বেশি এবং পুষ্টিযুক্ত সেসব খাবার বেশি খাওয়া উচিত। সবজি খাওয়ার পরিমাণ বাড়াতে হবে। কোনো কিছু খাওয়ার প্রয়োজন হলে ভাজাপোড়ার বদলে ফলমূল খাওয়া যেতে পারে। আরও বেশ কিছু কারণে এ সময়ে ডায়েট করাটা সহজ।

১) বলা হয়ে থাকে সূর্যের আলো শরীরে সেরোটনিন লেভেল বা হ্যাপি হরমোনের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়। যার কারণে মন-মেজাজ ফুরফুরে থাকে। এতে করে শরীর সুস্থ থাকে এবং শরীরে শক্তির পরিমাণ বজায় থাকে। সতেজ ভাবটাও থাকে।

২) সূর্যের আলোতে ভিটামিন ডি-এর পরিমাণ বেশি থাকে। সূর্যের আলো বেশি থাকায় ভিটামিন ডি শরীরে সরাসরি কাজে দেয়। ভিটামিন ডি শরীরে করটিসোল লেভেলের পরিমাণ কমিয়ে দেয়। করটিসোলের রোগ প্রতিরোধক্ষমতা এবং শক্তির পরিমাণ বেড়ে যায়। এর ফলে যে কাজই করা হোক না কেন শক্তিটা বজায় থাকে।

৩) গরমকালে শরীরের উষ্ণতা বজায় থাকে। সঙ্গে সঙ্গে রক্তকণিকাগুলো চলমান থাকে। এ কারণে শরীরে মেটাবোলিক রেট বেড়ে যায়। যার কারণে খাবার হজম হতে সুবিধা হয়। যেকোনো কাজই করা হোক না কেন মেটাবলিজম রেট বেশি থাকার কারণে ক্যালরিটা কমে যেতে সাহায্য করে। শরীর থেকে যে পরিমাণে ঘাম বের হয় সেটাও অনেক কার্যকর।

৪) সারা দিনে অনেক সময় ধরে কাজ করা সম্ভব হয় গরমে। যা শীতকালে সম্ভব হয় না। গরমকালে কাজ করার ক্ষেত্রে অনেক বেশি সচল থাকা যায়।

৫) গরম খাবার, চকলেট-কফি বেশি ক্যালরিযুক্ত খাবার খাওয়া হয় কিন্তু গরমকালে সাধারণত মানুষ একটু ঠান্ডাজাতীয় খাবার শাকসবজি, পানীয় ইত্যাদি বেশি খেয়ে থাকে। যেগুলোতে ক্যালরির পরিমাণ অনেক কম থাকে এবং পুষ্টিকর।

সূত্র: ফেমিনা

www.blogkori.tk

Blogkori

Phasellus facilisis convallis metus, ut imperdiet augue auctor nec. Duis at velit id augue lobortis porta. Sed varius, enim accumsan aliquam tincidunt, tortor urna vulputate quam, eget finibus urna est in augue.

Post a Comment