ইফতারিতে নতুন স্বাদ | blogkori

চেনা ইফতারিতে নতুন স্বাদ


ইফতারের টেবিলে ঐতিহ্যবাহী কিছু খাবারের পদ থাকেই। সেসবের স্বাদে চাইলে একটু নতুনত্ব আনতে পারেন। দেখে নিতে পারেন সিতারা ফিরদৌসের দেওয়া রেসিপিগুলো



বেগুনিঃ

উপকরণ: ছোলার ডালের বেসন দেড় কাপ, পোলাওয়ের চালের গুঁড়া আধা কাপ, মরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, বেকিং পাউডার ১ চা-চামচ, রসুন বাটা আধা চা-চামচ, আদা বাটা আধা চা-চামচ, লবণ পরিমাণমতো, তেল ভাজার জন্য, মাঝারি সাইজের বেগুন ২টি।

প্রণালি: বেগুন পাতলা করে কেটে সামান্য লবণ মাখিয়ে রাখতে হবে। বেগুন ও তেল বাদে বাকি সমস্ত উপকরণ একঙ্গে মিলিয়ে পরিমাণমতো পানি দিয়ে থকথকে মিশ্রণ করে কিছুক্ষণ রাখতে হবে, বেগুন বেসনের ব্যাটারে ডুবিয়ে গরম ডুবোতেলে ভাজতে হবে।
একইভাবে—
পুঁইপাতা, মিষ্টিকুমড়া, শসা, আলু, কাঁচকলা, মিষ্টি কুমড়ার ফুল, বক ফুল, পেঁয়াজ, রসুন, কাঁচা মরিচ, চিংড়ি মাছ, বড় মাছের ফিলে, স্লাইস চিজ, মোজারেলা চিজ, ঢাকাই চিজ ইত্যাদি দিয়ে এভাবে মিশ্রণে ডুবিয়ে ভাজা যায়।



শাহি হালিমঃ

উপকরণ-১: মাংস (হাড়সহ) ৩ কেজি, আদা বাটা ৩ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ২ টেবিল চামচ, জিরা বাটা ২ চা-চামচ, ধনে গুঁড়া ২ টেবিল চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া ২ চা-চামচ, জায়ফল-জয়ত্রি গুঁড়া আধা চা-চামচ, গরম মসলার গুঁড়া ১ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, দারুচিনি ৬ টুকরা, এলাচ ৬টি, লবঙ্গ ৮টি, তেজপাতা ২টি, টকদই ১ কাপ, লবণ পরিমাণমতো, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, টমেটো পিউরি আধা কাপ, চিনি ১ চা-চামচ, পেঁয়াজ বেরেস্তা ৪ টেবিল চামচ ও তেল ১ কাপ।

প্রণালি: হাড়সহ মাংস ছোট টুকরা করে গরম মসলার গুঁড়া, বেরেস্তা বাদে বাকি সমস্ত উপকরণ দিয়ে মেখে কিছুক্ষণ রাখতে হবে। পরিমাণমতো গরম পানি দিয়ে মাংস রান্না করতে হবে। মাংস সেদ্ধ হয়ে ঝোল কমে এলে বেরেস্তা ও গরম মসলার গুঁড়া দিয়ে নামাতে হবে।

উপকরণ-২: পোলাওয়ের চাল ১ কাপ, মুগ ডাল ভাজা আধা কাপ, মসুর ডাল আধা কাপ, মটর ডাল আধা কাপ, মাষকলাই ডাল ১ কাপ, ছোলার ডাল আধা কাপ, গম (আধা ভাঙা) ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, রসুন কুচি ২ টেবিল চামচ, আদা কুচি ২ টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ ৮-১০টি, হলুদ গুঁড়া ১ চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, লবণ পরিমাণমতো এবং পুদিনাপাতা কুচি ৪ টেবিল চামচ।

প্রণালি: গম ৫-৬ ঘণ্টা ভিজিয়ে রেখে চাল ও ডাল ধুয়ে সমস্ত উপকরণ একসঙ্গে পরিমাণমতো পানি দিয়ে ভালোভাবে সেদ্ধ করে ঘুটে নিয়ে মাংস ঢেলে দিয়ে মৃদু আঁচে রান্না করতে হবে।
পরিবেশনের সময় আদা কুচি, পেঁয়াজ বেরেস্তা, হালিমের মসলা, লেমনরাইন্ড, লেবুর রস, কাঁচা মরিচ কুচি, পুদিনাপাতা ও ধনে পাতা কুচি দিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

হালিমের মসলার উপকরণ: ধনিয়া ৬ টেবিল চামচ, সরিষা ২ টেবিল চামচ, কালিজিরা ১ চা-চামচ, গোলমরিচ ১ টেবিল চামচ, শুকনা মরিচ ১২-১৪টি, মৌরি ১ টেবিল চামচ, মেথি ১ চা-চামচ, দারুচিনি ১ টেবিল চামচ, এলাচ ৮টি, লবঙ্গ ১ টেবিল চামচ, জিরা ২ টেবিল চামচ, রাঁধুনি ১ টেবিল চামচ, একাঙ্গি (আদা) ২টি ও বড় এলাচ ৪টি।
প্রণালি: সব মসলা আলাদা টেলে গুঁড়া করে একসঙ্গে মিশিয়ে রাখতে হবে।


সবজি পেঁয়াজুঃ

উপকরণ: মসুর ডাল আধা কাপ, মটর ডাল আধা কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, গাজর কুচি ৩ টেবিল চামচ, পাতাকপি কুচি আধা কাপ, আলু কুচি ২ টেবিল চামচ, মটরশুঁটি ৩ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ, আদা বাটা আধা চা-চামচ, রসুন বাটা আধা চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, বেসন ২ টেবিল চামচ, বেকিং পাউডার আধা চা-চামচ, লবণ পরিমাণমতো।

প্রণালি: ডাল ৩-৪ ঘণ্টা ভিজিয়ে রেখে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে বেটে সব উপকরণ দিয়ে মাখিয়ে গরম তেলে পেঁয়াজু মচমচে করে ভাজতে হবে।


পনির কাবলি চানাঃ
উপকরণ: কাবলি চানা ২৫০ গ্রাম, ঢাকাই পনির ছোট করে কাটা ১ কাপ, আদা বাটা ১ চা-চামচ, রসুন বাটা ১ চা-চামচ, জিরা বাটা আধা চা-চামচ, পিঁয়াজ কুচি ১ কাপ, কাঁচা মরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ, টমেটো ছোট করে কাটা আধা কাপ, ক্যাপসিকাম ছোট করে কাটা আধা কাপ, লেবুর রস ১ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, পুদিনা পাতা ২ টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো, তেল ৪ টেবিল চামচ, চাট মসলা ২ চা-চামচ ও হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ।
প্রণালি: কাবুলি চানা পাঁচ-ছয় ঘণ্টা ভিজিয়ে রেখে হলুদ, লবণ দিয়ে সেদ্ধ করে শুকিয়ে নিতে হবে। তেল গরম করে সমস্ত মসলা কষিয়ে কাঁচা মরিচ, পেঁয়াজ, টমেটো, ছোলা দিয়ে ভাজতে হবে। ক্যাপসিকাম, ধনেপাতা, পনির দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে লেবুর রস, পুদিনাপাতা দিয়ে নামাতে হবে।


পাঁচমিশালি ফলঃ
উপকরণ: আম কিউব করে কাটা ১ কাপ। আপেল, আনারস, পাকা পেঁপে, সাগরকলা, সফেদা কিউব করে কাটা আধা কাপ করে। দুই রকমের আঙুর আধা কাপ, মাল্টা ২টি, খেজুর আধা কাপ। কাজু, আমন্ড, পেস্তা, আখরোট একসঙ্গে মেশানো ও বাদাম আধা কাপ, পুদিনাপাতা ৪ টেবিল চামচ, লেবুর রস ২ টেবিল চামচ, সাদা গোলমরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, লবণ পরিমাণমতো, সালাদ ড্রেসিং ৪ টেবিল চামচ ও মধু ৪ টেবিল চামচ। চাইলে পছন্দমতো ফল দিতে পারেন।

প্রণালি: ফল টুকরা করে ফ্রিজে রাখতে হবে। পরিবেশনের সময় সালাদ ড্রেসিং, মধু, গোলমরিচ গুঁড়া, লেবুর রস, লবণ, পুদিনাপাতা ফলের সঙ্গে মিলিয়ে বাদাম দিয়ে পরিবেশন করতে হবে।



বেলের লাচ্ছিঃ

উপকরণ: বড় পাকা বেল ১টি, মিষ্টি দই ৪ কাপ, ঠান্ডা পানি ৪-৫ কাপ, বরফ কুচি ১ কাপ ও মালাই ১ কাপ।
প্রণালি: বেল ভেঙে খোসা থেকে ছাড়িয়ে আঠা ও বিচি ফেলে ৩ কাপ পানিতে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন। মোটা চালুনিতে চেলে নিয়ে বেলের সঙ্গে বাকি পানি ও দই মিশিয়ে বরফ কুচি দিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে মালাই দিয়ে ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করতে হবে।

Blogkori

Phasellus facilisis convallis metus, ut imperdiet augue auctor nec. Duis at velit id augue lobortis porta. Sed varius, enim accumsan aliquam tincidunt, tortor urna vulputate quam, eget finibus urna est in augue.

Post a Comment